থাইল্যান্ডের ১৩ ফুটবলারের গুহায় আটকে যাবার ঘটনাটি সারাবিশ্বে আলোড়ন তুলেছে। এমনকি ফিফা থেকেও সেই ১৩ জন খেলোয়াড়কে নিমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছে ফাইনালে খেলা দেখার জন্য। তবে থাইল্যান্ড সরকার এক কাঠি এগিয়ে।

থাম লুয়াং গুহাকে ‘জীবন্ত জাদুঘর’ বানানোর পরিকল্পনা করছে থাইল্যান্ড সরকার। ১৭ দিনের ভয়াবহ অভিযান এবং তার সাফল্যকে স্মরণীয় করে রাখতে এমন উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানান দেশটির সাবেক গভর্নর এবং উদ্ধারকারী দলের প্রধান নারংসাক ওসোটানাকর্ন।

তিনি জানান, এই গুহাকে জাদুঘর বানানোর একটাই লক্ষ্য কীভাবে অভিযান চালিয়ে ‘ওয়াইল্ড বোয়ার্স’ দলটিকে উদ্ধার করা হয়েছে, তার তথ্য সংরক্ষণ করা।

বুধবার যখন গুহা থেকে সব শিশু এবং তার প্রশিক্ষককে উদ্ধার করা হয়, তখনই সিনেমা বানানোর একটি স্ক্রিপ্ট খসড়া করে ফেলেন দুই হলিউড ছবি নির্মাতা। গুহার ভিতর যে টানটান উত্তেজনা চলছে, তা উপলব্ধি করতে সেখানে গিয়ে উপস্থিত হন তারা।

‘ওয়াইল্ড বোয়ার্স’ দলের ফুটবলারদের দুঃসাহসিক লড়াই নিয়ে আগামী দিনে সিনেমা যে হবে, নিশ্চিত করে গিয়েছেন নির্মাতারা। সেই খুদে শিশুদের বিশ্বকাপ ফাইনালে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন ফিফা প্রেসিডেন্টও।

থাইল্যান্ডের দীর্ঘতম গুহা থাম লুয়াং। মায়ানমার সীমান্তের উত্তর চিয়াং রাইয়ের এই গুহাকে ঘিরে রয়েছে পর্বতমালা। তার কোলে অখ্যাত ছোট্ট শহর মায়ে সাই। পর্যটকের সেভাবে ভিড় নেই এখানে। বিশ্বের দরবারে থাম লিয়াং গুহা এই দু’সপ্তাহে যে খ্যাতি লাভ করেছে, তা ধরে রাখতে চায় থাইল্যান্ড প্রশাসন। সেখানে পর্যটকের ভিড় বাড়াতে এই গুহাকে জাদুঘর বানানোর পরিকল্পনা করছে প্রশাসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here